• সাভার

  •  বুধবার, জুলাই ২৪, ২০২৪

জাতীয়

কৃষিই হবে উন্নয়ন ও উন্নত জীবনের হাতিয়ার

নিজস্ব প্রতিবেদক

 প্রকাশিত: ১৫:১৬, ২০ সেপ্টেম্বর ২০২৩

কৃষিই হবে উন্নয়ন ও উন্নত জীবনের হাতিয়ার

কৃষিই হবে উন্নয়ন ও উন্নত জীবনের হাতিয়ার

কৃষি দেশের সার্বিক উন্নয়নে ও কৃষকের উন্নত জীবনমানের হাতিয়ারে পরিণত হবে বলে মন্তব্য করেছেন কৃষিমন্ত্রী ও আওয়ামী লীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য ড. মো. আব্দুর রাজ্জাক। তিনি বলেন, কৃষিকাজ করে কৃষক শুধু খেয়ে পড়ে আর গামছা-লুঙ্গি পড়ে কোন রকমে বেঁচে থাকবে সেটি আর থাকবে না। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে বর্তমান সরকার কৃষিকে আধুনিক ও লাভজনক করতে নিরলস কাজ করছে। যাতে করে কৃষি দেশের সার্বিক উন্নয়ন ও কৃষকের উন্নত জীবনের মূল হাতিয়ারে পরিণত হতে পারে। সে লক্ষ্যেই বর্তমান সরকার কৃষিতে সর্বোচ্চ গুরুত্ব প্রদান করছে। 
 
মঙ্গলবার (১৯ সেপ্টেম্বর) দিনাজপুরের নশিপুরে বাংলাদেশ গম ও ভুট্টা গবেষণা ইনস্টিটিউটের সদর দপ্তরে ঘাতসহনশীল গবেষণা কমপ্লেক্স উদ্বোধন,  গ্রিন হাউসে বিভিন্ন গবেষণা কার্যক্রম ও বঙ্গবন্ধু কর্ণার পরিদর্শন এবং প্রতিষ্ঠানটির বার্ষিক গবেষণা পর্যালোচনা কর্মশালার উদ্বোধন শেষে সাংবাদিকদের সাথে মতবিনিময়কালে মন্ত্রী এসব কথা বলেন। 

মন্ত্রী বলেন, আমাদের মূল খাদ্য চালের পাশাপাশি গম ও ভুট্টার চাহিদাও বাড়ছে। ভুট্টা উৎপাদনে আমরা খুবই সফল হয়েছি। ২০০৮-০৯ সালে ভুট্টার উৎপাদন যেখানে মাত্র ৬ লাখ টন ছিল, তা বেড়ে ৬৭ লাখ টনে উন্নীত হয়েছে। নানান সমস্যা থাকায় গমের উৎপাদন তেমন বাড়ে নি, বছরে প্রায় ৬০ লাখ টন গম আমদানি করতে হয়। তবে দেশের বিজ্ঞানীরা সম্প্রতি গমের উন্নত সম্ভাবনাময় জাত উদ্ভাবন করেছে। আশা করছি, এগুলো চাষের মাধ্যমে আমরা গমের আমদানি অনেকটা কমিয়ে আনতে পারব।

পেঁয়াজ-আলু- ডিমের দাম  বেশির বিষয়ে মন্ত্রী বলেন, এসব পণ্যের দাম বৃদ্ধি সাময়িক ব্যাপার, শীঘ্রই দাম কমে আসবে। আর ডিম আমদানির ফলে দেশের খামারিরা যাতে ক্ষতিগ্রস্ত না হয়, সেদিকেও খেয়াল রাখা হচ্ছে। বিএনপির আন্দোলনের প্রসঙ্গে মন্ত্রী বলেন, বিএনপি ১৫ বছরে আন্দোলন কর্মসূচি দিয়ে সফল হয় নি, ১৫ দিনের চূড়ান্ত আন্দোলনেও সফল হবে না। বিএনপি  আবারও ব্যর্থ হবে, আর ব্যর্থ হয়ে তাদের নেতাকর্মীরা হতাশায় নিমজ্জিত হবে। এই ব্যর্থতার গ্লানি ও হতাশা নিয়ে লজ্জায়  বিএনপির বিপুল পরিমাণ নেতাকর্মী আর কখনো ঘর থেকে বের হবে না, রাজনীতি থেকে সরে যাবে, বিপথে পরিচালিত হবে। এবং বিএনপির অস্তিত্ব একেবারে বিলীন হয়ে যাবে। 

বিএনপিকে নির্বাচনে আসার আহ্বান জানিয়ে মন্ত্রী বলেন, আমরা চাই বাংলাদেশে একটি অত্যন্ত সক্ষম বিরোধী দল থাকুক। এটা যে কোন দেশের সরকারের জবাবদিহিতার জন্য গুরুত্বপূর্ণ। কাজেই, আপনারা নির্বাচনে আসুন। নির্বাচন ছাড়া আওয়ামী লীগকে ক্ষমতা থেকে সরানোর মতো শক্তি আপনাদের নেই।

এসময় নৌপরিবহন প্রতিমন্ত্রী খালিদ মাহমুদ চৌধুরী,  হুইপ ইকবালুর রহিম, সংসদ সদস্য মনোরঞ্জন শীল গোপাল, গম ও ভুট্টা ইনস্টিটিউটের মহাপরিচালক গোলাম ফারুক, বিএআরসির নির্বাহী চেয়ারম্যান শেখ মো বখতিয়ার, কৃষি মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব রবীন্দ্রশ্রী বড়ুয়া, কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের মহাপরিচালক তাজুল ইসলাম পাটোয়ারী,  ধান গবেষণা ইনস্টিটিউটের মহাপরিচালক শাহজাহান কবীর, পরমাণু কৃষি গবেষণা ইনস্টিটিউটের মহাপরিচালক মির্জা মোফাজ্জল ইসলাম প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।  পরে মন্ত্রী বিকালে জেলা শিল্পকলা একাডেমি মিলনায়তনে রংপুর ও দিনাজপুর অঞ্চলে তেল ফসল ও ধানের উৎপাদন বৃদ্ধিতে করণীয় বিষয়ে মতবিনিময় সভায় প্রধান অতিথি হিসাবে যোগ দেন। 

মন্তব্য করুন: