• সাভার

  •  বুধবার, জুলাই ২৪, ২০২৪

নগর জুড়ে

জাবি ছাত্রীকে হেনস্তা, সাত বাস আটক

নিজস্ব প্রতিবেদক

 প্রকাশিত: ১৪:২০, ১৫ অক্টোবর ২০২৩

জাবি ছাত্রীকে হেনস্তা, সাত বাস আটক

জাবি ছাত্রীকে হেনস্তা, সাত বাস আটক

জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের (জাবি) এক ছাত্রীকে বাসে হেনস্তার অভিযোগে লাব্বাইক পরিবহনের সাতটি বাস আটক করেছেন বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা। শনিবার (১৪ অক্টোবর) দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে বিশ্ববিদ্যালয়ের চারুকলা বিভাগের একদল শিক্ষার্থী বাসগুলো আটকাতে শুরু করেন। পরে সন্ধ্যা ছয়টার দিকে বাসগুলো থেকে বিভিন্ন অঙ্কের টাকা নিয়ে তারা ছেড়ে দেন বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। হেনস্তার শিকার ছাত্রী চারুকলা বিভাগের ৪৯তম ব্যাচের শিক্ষার্থী।

বাস আটককারী কয়েকজন শিক্ষার্থীর সঙ্গে কথা বলে জানা যায়, শুক্রবার বিকেলে বিশ্ববিদ্যালয়ের চারুকলা বিভাগের এক ছাত্রী লাব্বাইক বাসে করে ঢাকা যাচ্ছিলেন। এ সময় বাসের কন্ডাক্টরের সঙ্গে হাফ ভাড়া নিয়ে কথা-কাটাকাটি হয়। এক পর্যায়ে বাসের কন্ডাক্টর ওই ছাত্রীর সঙ্গে খারাপ আচরণ করেন। এ ঘটনার জেরে ওই বিভাগের একদল শিক্ষার্থী বাসগুলো আটক করেন।

ভুক্তভোগী ছাত্রী জানান, শুক্রবার বিকেলে আমি ও আমার বান্ধবী বাসে করে ঢাকা যাচ্ছিলাম। ভাড়া নিয়ে বাসের কন্ডাক্টর খুবই খারাপ আচরণ করেন। সে পারলে আমাদের মেরে বসে, এমন আচরণ করতে থাকেন। পরে আমরা তাদের বলেছি, জাস্ট সরি বলতে। কিন্তু তারা কেউ সরি বলেনি।

এদিকে, বাসগুলো ছাড়তে টাকা নেওয়ার অভিযোগ উঠেছে। লাব্বাইক পরিবহনের একটি বাসের স্টাফ শাওন বলেন, ৩৫০০ টাকা নিয়ে সন্ধ্যায় তাদের বাসটি ছেড়ে দিয়েছে। সারাদিন বাস আটক রেখেছে শিক্ষার্থীরা এবং তাদের মারধর করেছে।

বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর আ স ম  ফিরোজ-উল-হাসান বলেন, শুনেছি এক ছাত্রীর সঙ্গে লাব্বাইক পরিবহনের এক স্টাফের সঙ্গে বিশ্ববিদ্যালয়ের এক ছাত্রীর ঝামেলা হয়। তার জেরে বাস আটক করেছে। ওই শিক্ষার্থীর দাবি ছিল বাসের হেল্পার শুধু সরি বল্লেই বাসগুলো ছেড়ে দেবে।

তিনি বলেন, আমি তখনই নিরাপত্তা শাখার এক কর্মকর্তা, সাভার হাইওয়ে থানার একজন কর্মকর্তা এবং তিনজন সহকারী প্রক্টরকে পাঠিয়েছিলাম। নিরাপত্তা কর্মকর্তা আমাকে জানিয়েছেন সন্ধ্যার দিকে কয়েকটি বাস ছেড়ে দিয়েছেন। আর কয়েকটি বাস আছে কিন্তু বাসের চালকদের তারা খুঁজে পাচ্ছেন না।

মন্তব্য করুন: